সিনিয়র আপু রিয়া-bangla love story golpo

bangla love story golpo
bangla love story

বিকেলের দিকে সাইকেল নিয়ে রাস্তায় হাটতেছি আর গান গাইতেছি bangla love story golpo

এই পথে যখন আমি যাই,,,
মাঝে মাঝে একটা গুন্ডি মেয়ে
দেখতে পাই,,,
লিপিস্টিক ঠোঁটে,,,
আবার ময়দা মাখিছে 😂

একটা গুন্ডি মার্কা মেয়ে, পাগল করেছে,,😋

কি বেপার! আমি এগোতে পারছি না কেনো? 😳

ওই কোন সালারে,,, পিছন থেকে আমার কলার ধরছে,,,,,

লোকটা কলার ছেরে আমার সামনে আসতেই,,,,, ঃ রিয়া আপু,,, 😟 তুত তুমি!

রিয়াঃ হুম আমি,,, অই তোকে কতবার বারণ করেছি,,,যে তুই আমাকে দেখে আর এই গানটা গাইবি না,,,, 😠

আমিঃআ আমিতো এমনিতেই গান গাচ্ছিলাম,,, তোমাকে মেনসন করে গাই নাই তো 😰

রিয়াঃ ( আমার কলার ধরে) অই,,,, কি জেনো বলছিলি? আমি ময়াদা মাখছি,,,,

আমিঃ আমি তোমাকে কিছু বলি নাই তো😵

রিয়াঃ ওওই,,, একদম চুপ,,,, কোনো কথা বলবি না,,,, ১০ বার কান ধরে উঠ বস কর,,,,

আমিঃ ( এক্কেবারে তামিল সিনেমার নায়কদের স্টাইলে) এএএএই,,,,, তোমার ধারণা নেই,, আমি এখন কি করতে পারি 😎

আমার কথাটা শোনেই রিয়া হাসতে হাসতে এক্কেবারে শেষ,,, তারপর ওর দু হাতে মুখ চেপে ধরে হাসি থামানোর চেষ্টা করে আমাকে বলতে থাকেঃ কিহ 😂 প্রতিদিনের মতো সাইকেল ফেলে,,, খেইচ্চা দৌড় দিবি,,,,

আমিঃ মোটেও না 😇

রিয়াঃ ( কোমরে হাত দিয়ে) ওমা,, তাহলে আজ কি করবি,,,?

আমিঃ ( এক্কেবারে সাকিব খানের স্টাইল লইয়া) এইই সাইকেলে উঠে বসলাম,,, আর ভাগা দিলাম😂🚴

রিয়াঃ কিহহ,,, আজকেও আমাকে বোকা বানিয়েছিস,,,,, আর এক বার পেয়ে নিই,,, তোকে গুনে গুনে ২৯ টা বটনি( কান ধরে উঠ বস করানো) লওয়ামু😠

যাক বাবা ভালোই ভালোই কেটে পরলাম,,,

সাইকেল চালাচ্ছি আর গান গাচ্ছি,,,

চলে আমার সাইকেল হাওয়ার বেগে উইরা উইরা,,,,

অরে আমার সাইকেলের ব্রেক কাজ করতেছে না কেন! 😭

ও কাকু,,,, সাইডে যান,, আমার সাইকেলেএ ব্রেক ছিরে গেছে,,,,

ডুউউউউউউউসস,,,,,,

কাকু( অরুফে বুইরা)ঃ ওও মায়াগো,,, আমার কোমর টা গেলো,,,,

ওওওয়া,,, ওওওয়া,,, ওওওয়া,,😭

আমি যেই কাকু কে উঠাতে যাবো,,, এএএএয়ে 😵 কাম সারছে,,,, এইড্ডা তো রিয়ানির আব্বু,,, ওরে আল্লারে এহন আমার কি হইবো 😭

যাউজ্ঞা দেখি কাকু কে পাম টাম মাইরা কোনো কাজ হয় কি না,,,,

যাক বাবা অবশেষে বহুত কাহিনী আর নেকামির পর,,, কাকু আমার লাইনে আসলো,,,

তারপর সাইকেল নিয়ে বাজারে গিয়ে,,,, ব্রেক ঠিক ঠাক করে,,, আড্ডা খানায় গেলাম৷

রুবেলঃ কিরে সাদ,,, আজকে এতো লেট করলি কেন?

এএএএহহে রে,, আপনাদের কে তো আমার পরিচয় টাই দেওয়া হয় নি,,,

আহেন ভাই আহেন,,, আগে পরিচয় টা দিয়া লই,,

( আমি Srabon ahamed sayed ,, আর ডাক নাম,,, সাদ,,,, আর শুরুতে যার সাথে ঝগড়া হলো,,, উনি হচ্ছেন রিয়া আপু,,,, মানে আমার ক্রাশ,,,,, যদিও বা উনি আমার ৩ বছরের সিনিয়র তবুও,,,, আমি ওকেই লাভ করি,,,, কিন্তু দুঃখের কথা কি আর কমু রে ভাই,,,, রিয়ানি আমাকে পাত্তাই দেয় না,,,, আর এই মাইয়া আমাদের ভার্সিটির,,, বড়ো বোন,,,,মানে আমাদের পুরো ভার্সিটি উনার কথাতেই উঠ বস করে,,,,যাউকগা সেসব কথা,, আহেন ভাই আমরা গল্পে যাই )

আমিঃ ভাইরে আর বলিস না,,,, সে এক বিরাট ইতিহাস,,,,, আচ্ছা বাদ দে,,,,, কালকে কি তোরা ভার্সিটিতে যাবি?

হারামিগুলাঃ হুম্মম,,,

আমিঃ অহ,,,

তারপর হারামিগুলার সাথে কিছুক্ষণ আড্ডা দিয়ে বাসায় ফিরলাম,,,,

বাসায় ফিরতেই দেখি আব্বু দরজার সামনে দাড়িয়ে আছে,,,,

আহেন ভাই,,, আমার আব্বুর কিছু বিশেষ গুন,,, আপনাদেরকে জানায়,,,,

হ্যাঁ ভাই ইনিই হচ্ছেন আমার আব্বু,,, যিনি,,,কিপ্টামির জন্য বিশ্ব সেরা নোবেল পুরষ্কার পেয়েছেন,,,,, আরে নোবেল টা কোনো সংস্থা দেয় নি,,,, আমি নিজেই দিয়েছি,,, দুঃখের কথা কিবার কমু রে ভাই,,, কতোবার বলছি,, এই ভাংগা চুরা সাইকেলটা আর চালাতে পারি না,,,, এটা বিক্রি করে,, আমাকে একটা বাইক কিনে দাও,,,, কিন্তু অইযে,,, উনি তো উনার (বিশ্বের অন্যতম কিপটা) উপাধিটা অব্যাহত রাখবেন,,, তাই আর আমার বাইক কিনা হলো না 😭

আব্বুঃ ( আমাকে উদ্দেশ্য করে) আমার পকেট থেকে ২০ টাকা কে নিয়েছে?

আমিঃ আমি কি জানি 😵( কামডা আমিই করছি,,, আপনারা আবার কইয়া দিয়েন না 😂,,,,কি এখন তো বিলিভ হলো,, আমার আব্বু টা কি লেবেলের কিপটা,,,, ২০ টাকা পকেট মারছি,,, সেটা নিয়েও জামেলা করতেছে)

আব্বুঃআমি ভালো করেই জানি আমার পকেট টা কে মারছে,,,

আমিঃ আজব,,, জানো তো আবার আমাকে কেনো জিজ্ঞেস করছো?

এমন আম্মু এসে,,,,, ( আব্বুকে উদ্দেশ্য করে) কি বেপার! তুমি আমার ছেলের সাথে কেনো লাগছো?

আব্বুঃ তুমার এই গুনধর ছেলে আমার পকেট মারছে,,,

আম্মুঃ ওসব বেপার না,,,, ( তারপর আম্মু আমার হাত ধরে,,, বাসার ভিতরে নিতে নিতে,,,) আয় বাবা,,,, ইইসস আমার ছেলেটা সেই কখন থেকে না খেয়ে আছে 😕

আমি ফট কইরা আব্বুরে একটা ভেংচি কেটে ভৌ দৌড় ,,,,

আব্বুঃ দেখছো নি কারবারটা,,, এই মা, ছেলের জন্য আমার বংসের ওইতিজ্য টা বিলিন হয়ে যাইতেছে,,,

রাতের খাবার শেষ করে,,,

রুমে এসে,,,, রিয়ানিরে মিসড কল মারলাম😂

অবশ্য প্রতিদিনই আমি এই কামডা করি,,, কিন্তু রিয়া জানে না,,, এই ফাজিল টা আমিই,,,, এই যে আপনারা আবার রিয়ানিরে কইয়া দিয়েন না,,, তাইলে ভাই আমি শেষ,,,

৫ টা মিসড কল মারার পর,,, রিয়া কল বেক করলো,,,

কল রিসিভ করে,,,,
আমি চুপ হয়ে আছি,,,

রিয়াঃ অই হারামি,,, ফাজিল, বিলাই,, ইন্দুর, তেলচুরা,,,, তুই প্রতিদিন আমাকে মিসড কল দেছ কেন?,,, আবার বেক করলে কথা বলিস না,,,, 😠,,,

তারপর অনেক সুন্দর সুন্দর কবিতা শোনাইছে,,,,,ওই সব আপনাদের না জানাই ভালো 😂

bangla love story golpo

তারপর ফট কইরা ফোন টা অফ করে ঘুমিয়ে পড়লাম,,,,

পরের দিন সকালে ভার্সিটিতে যেতেই,,,,

রিয়া আমার সামনে এসে হাজির,,,, সাথে কয়েকটা হাত্তিমার্কা বডিওয়ালা,,,

আমিঃ আপু আমি কি করছি😕?

রিয়াঃ কালকে আমার আব্বুকে সাইকেল লাগিয়ে ফেলে দিছিস কেন?

(এএএয়ে,,, সালার বুইড়া সব কইয়া দিছে,,, এতো পাম মাইরাও কোনো কাম হইলো না 😭)

আমিঃ আমি ইচ্ছে করে করি নাই,,,,, আমার সাইকেলের ব্রেক ছিরে গিয়েছিল,,,

রিয়াঃ ওকে,,,, মেনে নিলাম,,,, তাহলে তুই আমাকে প্রতি রাতে মিসড কল দিয়ে বিরক্ত করিস কেন?

আমিঃ( হাইরে এই মাইয়া জানলো কেমনে😟) না মানে,,,

রিয়াঃ না মানে কি?

আমিঃ ভালোবাসি 😋

রিয়াঃ কাকে?

আমিঃ আমার সামনে যে মেয়েটা দাড়িয়ে আছে,,, তাহাকে 😘

ঠাসসসসসস,,,,

রিয়াঃ এই কি বললি তুই 😠 তুই জানিস আমি তোর কতো সিনিয়র

আমিঃ ( গালে হাত ধরে) হুম জানি ,,,, কিন্তু আমি কি করবো,,, আমি তোমাকে ছাড়া থাকতে পারি না,,, 😕 তোমাকে না দেখতে পেলে আমার পুরো পৃথিবীটা অন্ধকার মনে হয়,,,,, তোমার সাথে একদিন কথা না বলতে পারলে আমার সেই দিন টাই যেনো অপূর্ণ থেকে যায়,,,, আমি জানি, তোমার পক্ষে হয়তো আমাকে কোনদিনি ভালোবাসা সম্ভব না,,,, কিন্তু তারপরও আমি শুধু তোমাকেই ভালোবেসে যাবো ,,, আর জীবনের শেষ নিশ্বাস অব্দি তোমার জন্য অপেক্ষা করবো,,,,,
( কথা গুলো এক নিশ্বাসে বলেই,,, রিয়ার কাছ থেকে সোজা ক্লাসে চলে গেলাম)

তারপর ভার্সিটি শেষ করে বাসায় এসে ফ্রেশ হয়ে খাবার খেয়েই,,, রুবেল কে কল করলাম,,,,

কুউউউউত কুউউউউত,,,,

কল রিসিভ হলো

আমিঃ রুবেল তুই একটু আমাদের বাড়ির সামনের রাস্তাটায় আয় তো,,,

রুবেলঃ এখন! মাত্র কলেজ থেকে আসছি,,, একটু বিশ্রাম নিতে দে ,,

আমিঃ অই সালা,,,, তোকে বলছি না,, এখন আসবি 😠

রুবেলঃ আচ্ছা আচ্ছা আসতেছি,,,

রাস্তায় দাড়িয়ে আছি,,, কিছুক্ষণ পরেই রুবেল চলে আসলো,,,

আমিঃ চল ঔ দিক টায় গিয়ে বসি,,,,

রুবেলঃ হুম চল,,,,

তারপর একটা নিরিবিলি স্থান চিহ্নিত করে দুজনে বসে পড়লাম,,,

রুবেলঃ তা,,, বল,,, কেনো ডাকছিস?

আমিঃ আজকে তো,, রিয়াকে প্রপোজ করে দিছি

রুবেলঃ বলিস কি! তারপর

আমিঃ আমাকে,, পাত্তা তো দিলই না,, উল্টো থাপ্পড় খাইছি,,,, 😰

রুবেলঃ আরে বেটা সেই জন্য মন খারাপ করিস না,,, সময় হলে ঠিক পটে যাবে,,,

আমিঃ হুম,, সেটায় যেনো হয়,,,,

তারপর রুবেলের সাথে কিছুক্ষণ আড্ডা দিয়ে বাসায় এসে,,,ছাদে বসে ভাবতে লাগলাম,,, রিয়াকে কিভাবে ইম্প্রেস করা যায়,,, রিয়াকে আবার প্রপোজ করবো,,, কিন্তু আবার যদি মাইর খাই,,, আরে যা হবার হবে ওকে আবার প্রপোজ করবো,,,,

পরের দিন বিকেলে,,,, রিয়ার বাড়ির সামনের রাস্তাটায় দাঁড়িয়ে আছি,,,,, আর রিয়ার জন্য অপেক্ষা করতেছি,,,,

কিছুক্ষণ পরে রিয়া আসতেই,, আমি রিয়ার সামনে গিয়ে হাটু গেরে বসে,,,, আমার পিছন থেকে ফুল গুলো এনে ওর সামনে ধরে বলতে লাগলাম,,,,

রিয়া,,,,এই পৃথিবী, আমি, তুমি,,, এই সকল কিছুর অস্তিত্ব যেমন সত্যি,, তেমনি আমি তোমাকে ভালোবাসি,, সেটাও সত্যি,,,, রিয়া আমি জানি তুমার মনে, এই আমার জন্য হয়তো,, এতোটুকু ভালোবাসাও জমা নেই,, ,,, কিন্তু তুমি শুধু আমাকে একটা বার সুযোগ দিয়ে দেখো,,, আমি কথা দিচ্ছি,,,,, আমি তোমার মনে আমার জন্য ভালোবাসা জমা করে দিবো,,,, দিবে কি একটা সুযোগ?

ঠাসসসসস,,,,,

রিয়াঃ এইই তুই তো বড়োও বেহায়া,,,, তোকে এতো করে বলার পরও,,, তুই ঠিক হলি না,,,,, দেখ তোকে ভালোই ভালোই বলতেছি,,, তুই আমার রাস্তা থেকে সরে যা,,, নয়তো আমি যে কি করতে পারি সেটা তুই ভালোভাবে টের পাবি 😠

কথাগুলো বলেই রিয়া হন হন করে আমার কাছ থেকে চলে যেতে লাগলো,,,,

আর আমি অসহায়ের মতো ওর চলে যাওয়ার দিকে চেয়ে আছি,,,,

এক বালতি দুঃখ মনে লইয়া বাসায় ফিরলাম,,,,

রাতের খাবার খেয়ে,,, বিছানায় শুয়ে আছি,,,, আর রিয়ার কথা গুলো ভাবতেছি,,,, ও কি কখনই আমার ভালোবাসাটা বুঝতে পারবে না,,,, কিন্তু আমি তো ওকে ছাড়া থাকতে পারবো না,,,, ওকে একদিন না দেখতে পেলে তো আমার দম বন্ধ হয়ে আসে,,,,, ঠিক আছে ওকে আর বিরক্ত করবো,,, আমি প্রতিদিন দূর থেকে ওকে একটাবার দেখেই চলে আসবো,,,, ওর সাথে কথা বলার চেষ্টাও করবো না,,,,

এভাবেই ৭ দিন কেটে গেলো,,,, ওকে শুধু দূর থেকেই দেখতাম,,, খুব ইচ্ছে করতো,, একটাবার ওর সাথে কথা বলার,,,, কিন্তু তারপরও অনেক কষ্টে নিজেকে সামলে রেখেছি,,,,

প্রায় ১৫ দিন পর,,,

ভার্সিটি শেষ করে বাসায় ফিরতেছি,,, এমন সময় পিছন দিক থেকে কারো ডাক শুনে থমকে দাড়ালাম ( এটা রিয়ার কন্ঠ না,,,
পিছন ফিরে তাকাতেই,,, হ্যাঁ,, এটা তো রিয়াই)

রিয়া আমার কাছে এসেই,,,, ঠাসসসস,,, ঠাসসসস,,,ঠাসসসসস ( পরপর ৩ টা থাপ্পড় মারলো)

আমি শুধু করুন দৃষ্টিতে রিয়ার দিকে তাকিয়েই আছি,,,, বুঝতে পারছিলাম না,, আমার ভুল টা কোথায়,,, আমি কি এমন করেছি,, যার জন্য,, রিয়া আমাকে 😰

রিয়াঃ কিরে,,, তুই কি আমাকে একটু শান্তিতে থাকতেও দিবি না,,,,

আমিঃ আমি আবার কি করলাম,,,,

রিয়াঃ কি করছিস!,,, তুই আমাকে সবসময় ফলো করিস,,, আমি বিরক্ত হয় না? ,,, তারপরও আমি তোকে কোনো দিন কিছু বলি নাই,,, কিন্তু কালকে রাতে তুই এটা কি করলি,,,, আননো নাম্বার থেকে ৫ বার কল করছিস,,,, কিন্তু কল রিসিভ করলে তুই আর কোনো কথা বলিস না,,,,, তুই জানিস,, তুই কল দেওয়ার পর কল টা আমার আম্মু রিসিভ করেছিলেন,,,, আর তুই কল দিয়ে কোনো কথা বলিস না,,,, কিছুক্ষণ পর নিজে থেকেই কেটে দিস,,,,, তারপরও আরও ২ বার কল করছিস,,, কিন্তু তখন আমি রিসিভ করেছি,,, তারপরও তুই কথা বলিস নি,,,,, এখন আম্মু আমাকে সন্দেহ করতেছে,,,,, আর বাসা থেকে আমাকে সাফ জানিয়ে দিয়েছে,, আগামী সসপ্তাহের মধ্যেই আমার বিয়ে দিয়ে দিবে 😰

আমিঃ রিয়া বিশ্বাস কর,,,তুমি মানা করার পর আমি আর তোমাকে কল দেইনি,,,

রিয়াঃ ব্যাস,,, অনেক হইছে,,,, তোকে যেনো,,, আর কোনো দিন আমার আশেপাশেও না দেখি,,,,,তুই আর কখনই আমার সামনে আসবি না,,,

কথাগুলো বলেই,, রিয়া হন হন করে চলে গেল,,

কেনো যেনো নিজেকে খুব অসহায় মনে হচ্ছে,,, নিজের অজান্তেই চোখ দিয়ে দু ফোটা জল গড়িয়ে পড়লো,,,, শার্টের হাতা দিয়ে চোখ মুছে,,,, বাড়ির উদ্দেশ্যে হাটা দিলাম,,,

বাসায় যেতেই,,,,,

আম্মুঃ কিরে,, তোর কি হইছে,, তোকে এমন দেখাচ্ছে কেনো!

আমিঃ কিছু না আম্মু,,,, ভালোলাগছে না,,,

আম্মুঃ আচ্ছা ফ্রেশ হয়ে খেতে আয়,,, আমি খাবার রেডি করছি,,

আমিঃ আম্মু আমি বাইরে থেকে খেয়ে আসছি( মিথ্যা বললাম)

খেয়াল করলাম,,, আম্মু কেমন ভাবে যেনো আমার দিকে তাকালো,,,

আম্মুঃ অহ,,,,

তারপর ওয়াশ রুমে গিয়ে ফ্রেশ হয়ে,,,, ছাদে চলে আসলাম,,,,, ১ টা সিগারেট ধরিয়ে,,,, ছাদের এক কোণে দাড়িয়ে সিগারেট খাচ্চি,,,, আর ভাবছি,,,, আমি তো শুধু রিয়াকে ভালোইবেসেছি,,, কোনো পাপ তো করিনি,,, তাহলে উপর ওয়ালা আমাকে এতো কষ্ট কেনো দিচ্ছেন,,,, যেই রিয়াকে আমি না,, অন্ন মুখে তুলতে পারি না,,, সেই রিয়াকে না দেখে,, আমি কিভাবে থাকবো,,,,

সিগারেট টা পুরতে পুরতে একেবারে শেষ হয়ে যেই আংগুলে গরম ছেকা লাগলো,,, ঠিক তখনই ভাবনাত ছেদ ভেঙে বাস্তবতায় ফিরলাম,,,,

নিজেকে কিছুটা সাভাবিক করে,,,, ছাদ থেকে নিচে নেমে এলাম,,,

অন্যদিকে রিয়ার সাথে যা ঘটছে….

বিকেলের দিকে রিয়ার ফোনে সোহানের কল,,,,, ( সোহান হচ্ছে রিয়ার বেস্ট ফ্রেন্ড)

রিসিভ করে,,,

রিয়াঃ হুম সোহান বল,,,

সোহানঃ একটু দেখা করতে পারবি?

রিয়াঃ এখন?

সোহানঃ হুম,,,,

রিয়াঃ আচ্ছা আমি আসতেছি,,,,

(দুজনের দেখা হওয়ার পর)

সোহানঃ কেমন আছিস?

রিয়াঃ ভালো নেই,,,,

সোহানঃ কেন কি হইছে!?

রিয়াঃ আরে বেটা কালকে,, কে যেনো রাতে আমার ফোনে কল দিয়েছিলো,,, পরে ওটা আম্মু রিসিভ করেছিলো,,, এখন আম্মু তো আমাকে সন্দেহ করা শুরু করেছে,,,

সোহাগঃ সরি দুস্ত! আসলে কালকে রাতে আমিই তোকে কল করেছিলাম,,, কিন্তু আমার ফোনের মাইক্রোফোন নষ্ট হয়ে যাওয়াই,,,, তোর সাথে কথা বলতে পারি নি,,, অবশ্য শুরুতে ভেবেছিলাম নেটওয়ার্ক এর প্রব্লেম,,, পরে বুঝতে পারলাম যে এই কাহিনী,,,

(সোহানের মুখে কথাটা শুনার পরপরই,, কেমন যেনো এক অজানা অনুভূতিতে রিয়ার ভিতরটা চমকে উঠল)

রিয়াঃ তুই,, সিওর,, যে কালকে রাতে তুইই আমাকে কল দিছিস?

সোহানঃ হুম রে দুস্ত,,, ওটা আমার নতুন নাম্বার,,,,

সোহানের মুখে কথাটা শুনার পরপরই,, কেমন যেনো এক অজানা অনুভূতিতে রিয়ার ভিতরটা চমকে উঠল)

রিয়াঃ তুই,, সিওর,, যে কালকে রাতে তুইই আমাকে কল দিছিস?

সোহানঃ হুম রে দুস্ত,,, ওটা আমার নতুন নাম্বার,,,, তোকে এমন লাগছে কেনো 😳,,, কোনো সমস্যা?

রিয়াঃ ( নিজেকে কিছুটা সাভাবিক করে,,, বিষয় টা সোহানের কাছে আড়াল করে) নাআ,,,, আচ্ছা বাদ দে ওসব,,, তুই কি জন্য ডেকেছিস?

সোহানঃ আজকে একটু তোকে,, আমাদের বাসায় যেতে হবে,,,

রিয়াঃ কখন?

সোহানঃ এখনি৷

রিয়াঃ কিন্তু আমি তো ( এতটুকু বলতেই সোহান বলে উঠে,,, প্লিজ দোস্ত না করিস না) আচ্ছা ঠিক আছে চল,,,,

অন্য দিকে আমি,,,,

রুমে এসে বিছানায় শুয়ে আছি,,,,,

এমন সময় আব্বু আমার রুমে এসে,,,,
কি নবাব সাহেব,, এই অবেলায় শুয়ে আছেন কেনো?

আমিঃ ভালো লাগছে না,,,

আব্বুঃ( রাগি কন্ঠে) ভালো লাগবে কি করে,,,, সারাদিন তো মেয়েদের পিছনেই পড়ে থাকো,,,,,

আমিঃ( কিছুটা অবাক হয়ে) আব্বু,, তুমি এসব কি বলতেছো 😵

আব্বুঃ কি বলতেছি তুমি বোঝো না 😠,,,,তুই সাদেক সাহেবের মেয়ে রিয়াকে কেনো ডিস্টার্ব করিস? এই তোর জন্য কি আমরা সমাজে ভালো ভাবে চলতেও পারবো না,,,, আজকে সাদেক সাহেব আমাকে সাফ সাফ জানিয়ে দিয়েছে,, এর পর আর কখনো রিয়াকে ডিস্টার্ব করলে তোকে ইভটিজিং য়ের মামলায় ঠুকবেন 😠


( নাহ বিছানায় আর শুয়ে থাকতে পারলাম না,,,, বিছানা থেকে উঠে,, একটা টিশার্ট আর মোবাইল ফোনটা নিয়েই বেড়িয়ে পরলাম)

আব্বুঃ এই যে মিস্টার,,, আবার কোন মেয়ের পিছনে লাগবেন,,,

আব্বুর কথার কোনো জবাব না দিয়েই,,, বাসা থেকে বেরিয়ে আসলাম,,,, রাস্তায় এসে,,, একটা নতুন নাম্বার থেকে রিয়াকে কল করলাম,,,,

কুউউউত,,, কুউউউউত,,,

কল রিসিভ করার পর,,,,,

আমিঃ ( মেয়েলি কন্ঠে) রিয়া,, তুই এখন কোথায়?

রিয়াঃ এই তো সোহানদের বাসায় যাচ্ছি,,,
কথাটা শোনার সাথে সাথেই আমি কল টা কেটে দিয়েই সোহান ভাইয়ার বাসার উদ্দেশ্য রওনা হলাম,,,

রিয়াঃ হ্যালো,, হ্যালো,,,, (কল কেটে দিয়েছে)

সোহানঃ কে কল করেছিলেন ?

রিয়াঃ জানিনা,,,, শুধু জিজ্ঞেস করলেন আমি কোথায় আছি,,,, আর তারপরই কেটে দিলেন,,

সোহানঃ আজব তুমি বল্লা কেন,, যে তুমি আমাদের বাসায় যাচ্ছো,,,

রিয়াঃ তোমাদের বাসায় যাচ্ছি,,,, এটা অন্য কেউ জানলে প্রব্লেম টা কোথায়?

সোহানঃ ( কিছুটা ভিতু কন্ঠে) না মানে,, কিছু না,,,,

তারপর রিয়া আর সোহান,,, সোহানের বাসায় পৌছোনোর কিছুক্ষণ পরপরই আমিও সোহানদের বাসায় পৌছে গেলাম,,,,

কি বেপার! বাড়িটা তো পুরো ফাকা,,, তাহলে কি রিয়া সোহানের বাসায় এখনও আসে নি,, নাকি এসে আবার চলে গেছে

সোহান ভাইয়ার রুমের দিকে উঁকি দিলাম,,, নাহ উনার রুমটাও তো বন্ধ,,,,

বাসা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার জন্য যেই পা বাড়ালাম,,, ঠিক তখনই সোহান ভাইয়ার রুমে কিছু পড়ে ভেঙে যাওয়ার আওয়াজ শোনতে পেলাম,,,,

কি বেপার উনার রুম তো বন্ধ,, তাহলে রুম থেকে ওয়াজ আসছে কেনো,,,,

কিছুটা রহস্য নিয়ে,,, আস্তে আস্তে সোহান ভাইয়ার রুমের দরজার কাছে গিয়ে কান পাত তেই,,,, আমি শক্ট
হয়ে যাই,,,

রুমের ভিতরে যা চলছে,,,,,

রিয়াঃ দে দেক,,, সোহান তুই আমার কাছে আসবি না,,,,

সোহানঃ রিয়া,, তোমার প্রব্লেম টা কোথায়,,, আমরা তো দুজন দুজনকে ভালোবাসি,,,

রিয়াঃ হ্যাঁ,, বাসি,,, কিন্তু সোহান,, আমি বিয়ের আগে এসব কখনই করতে পারবো না,,,,,

সোহানঃ দেখো রিয়া,,,,, আমদের দের বছরের রিলেশন,,,, আর তার মধ্যে আমি কখনোই তোমার কাছে কোনো কিছু আবদার করিনি,,,, তুমি বলেছো, , সবার সম্মুখে আমরা বেস্ট ফ্রেন্ড সেজে থাকবো,,, আমি তাতেও আপত্তি করি নি,,, কিন্তু রিয়া আজ আর আমি তোমার কোনো কথাই মানবো না,,,, আমি আজ তোমার ভালোবাসা টা আদায় করেই ছারবো,,,, কথাটা বলেই সোহান রিয়ার উপরে হিংস্র প্রাণীর মতো ঝাপিয়ে পড়লো,,,,,

আমিও এক বস্তা খুশি মনে লইয়া 😂 সোহানের বাসা ত্যাগ করার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হলাম,,, এতো দিন আমাকে বিনা দুষে সাজা দিয়েছে,, এখন নিজেও কিছুটা সাজা পাক না,,,, নিজেও কিছুটা উপলব্ধি করুক,,,, কাউকে বিনা দুষে কোনো দুষ বহন করাটা কতোটা কষ্টের হয়,,,,

সোহানের বাসার গেটের বাইরে যেই পা রাখতে যাবো,,, ঠিক তখনই কেনো জেনো বার বারই আমার মনে হতে লাগলো আমি কোথাও একটা ভুল করছি,,,, আচ্ছা রিয়া না হয় না জেনে আমার উপর দুষ চাপিয়ে দিয়েছে,,, কিন্তু আমি তো,,,,,, সাত পাচ না ভেবেই,,, এক দৌড়ে সোহানের রুমের দরজায় সজোরে ধাক্কা মারলাম,,,,, মুহুর্তের মধ্যেই দরজা খুলে আমি রমের ভিতরে এসে পড়ে গেলাম,,,,

সোহান রিয়াকে ছেরে দিয়ে আমার দিকে তাকিয়েঃ এইই তোকে আমার বাসায় ডুকার পারমিশন কে দিয়েছে,,,,

খেয়াল করলাম,, রিয়ার পরনের জামা টা অনেকটায় ছিরে গিয়েছে,,, আমি আমার পরনের টিশার্ট টা খুলে,,, রিয়ার দিকে ছুরে মারলাম,,,,

পরক্ষনেই সোহান আমাকে একটা ঘুসি মারলো,,,,,আমি একটা টেবিলে উপর পরে যাই,,,,আর বাম হাতের অনেকটা অংশ কেটে যায়,,,, তারপর আমিও টেবিলের উপর রাখা কাচের পাত্র দিয়েই সোহাইন্নার মাথায় আঘাত করি,,,, সোহান ফ্লোরে লুটিয়ে পড়ে,,,,

আর আমিও এক্কেবারে তামিল সিনেমার নায়কদের স্টাইল লইয়া😎,,,রিয়ার হাত ধরে,, ওকে নিয়ে সোহাইন্নার বাসা ত্যাগ করলাম,,,

রাস্তায় এসে একটা রিক্সা করে দুজনে রিয়াদের বাসার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হলাম,,,
রিক্সা তার আপন গতিতে চলতে শুরু করলো
রিয়া গুটিশুটি মেরে রিক্সায় বসে আছে,,,,
কারও মুখে কোনো কথা নেই,,,, জেনো প্রকৃতির এক অদ্ভুত নিরবতা দুজনের মধ্যে বিরাজমান,,,,

রিয়ার বাসার কাছে এসে,,,

(রিক্সাওয়ালাকে উদ্দেশ্য করে) মামা এখানে রাখেন,,,,

রিয়া রিক্সা থেকে নেমে,,, মাথা নিচু করে দাড়িয়ে আছে,,,

আমিঃ কি বেপার! বাসায় যাচ্ছো না কেনো?

মুহুর্তের মধ্যেই রিয়া আমাকে খুব শক্ত করে জরিয়ে ধরে কান্না করে দিলো,,,

আমি রিয়া কে এক ঝটকায় ছারিয়ে নিয়ে,,,,

কি করছো কি এসব 😠

রিয়াঃ( ওর চোখ গুলো পানিতে টলমল করছে,, আর ওর ঠোঁট জোড়া কাপছে,,, আমার গালে হাত দিয়ে) প্লিজ তুমি আমাকে ক্ষমা করে দাও,,,

আমিঃ( ওকে আবারও ছাড়িয়ে নিয়ে) দেখো,,,, আমার যেতে হবে,,,, আর আমি আর এখন কাউকে ভালোবাসি না,,,

কথাটা বলেই আমি চলে আসতে লাগলাম,,,

আর রিয়া অসহায়ের মতো আমার চলে আসার পথ পানে চেয়ে থাকলো,,,,

তারপর আমার বাসার সামনে,,, একটু এক্সটা ভাব সাব লইয়া,,,, বাসায় ডুকতেই,,,,

আব্বুঃ কিরে আজকে এতো স্টাইল মাইরা বাসায় প্রবেশ করলি,,,,, যেনো মেয়ে না,,, মেয়ের বাবা কেউ পটিয়ে আসছিস,,,

আমিঃ ( আব্বুর একেবারে কাছে গিয়ে) মাই ডেডু,,,, আমি কার ছেলে?

আব্বুঃ সারোয়ার জাহান সবুজ মিয়ার,,, একমাত্র অপদার্থ ছেলে,,,

আমিঃ নাহ,,, মাই ডিয়ার আব্বু,,, আপনার সেনটেন্স এ একটা শব্দ ভুল আছে,,,, শুধু অপদার্থ এর যায়গায় পদার্থ হপ্পে,,,,
কথাটা কইয়াই সেই লেবেলের ভাব লইয়া,,এক্কেবারে আমার রুমে,,,, 😂

আব্বুঃ এএএএয়ে😵

সন্ধায় যেই আব্বুর সাথে রিয়ার আব্বু মিঃ সাদেক সাহেবের দেখা হইয়া গেলো,,,,

সাদেক সাহেবঃ ( আব্বুর হাত ধরে) ভাইজান আমাকে ক্ষমা করে দেন,,, আসলে আমি আপনার ছেলেকে চিনতে ভুল করে ফেলছি,,

আব্বুঃ( মনে মনে,,,,,,এই হারামজাদা আবার সাদেক সাহেবকে ক্যালানি দিলো না তো) না মানে,, আপনার কথা কিছুই বুঝতে পারছি না,,,,

তারপর রিয়ার আব্বু মোর আব্বুর কাছে সকল ঘটনা খুলে বললেন,,,,,


পরের দিন ভার্সিটিতে যেতে,,,,

হারামিগুলা আমাকে দেখেই,,,,

রুবেলঃ মাম্মা কি খেল দেখাইলা,,,,, রিয়া আপুতো এক্কেবারে তোর উপরে ফিদা 😋

ইকবালঃ দুস্ত,,,, রিয়া ভাবি,, সেই সকাল থেকেই তোকে পাগলের মতো খুজতেছে,,,,,,

আমি ওদের কথার উত্তর দিতে যাবো,,, ঠিক তখনই রিয়া আমার সামনে এসে,,,,

রিয়াঃ কি বেপার! এতো লেট করে কেও ভার্সিটিতে আসে,,,,

আমি রিয়ার কথার কোনো জবাব না দিয়েই ক্লাস রুমের দিকে হাটা দিলাম,,,

রিয়াঃ (আমার সামনে এসে) প্লিজ,, তুমি আমার সাথে কথা বলো,,,,

আমিঃ এইই আমি আপনাকে কতো বার বলবো,,, আমি আর কাউকে ভালোবাসি না,,,,

রিয়াঃ (আমার সামনে এসে) প্লিজ,, তুমি আমার সাথে কথা বলো,,,,

আমিঃ এইই আমি আপনাকে কতো বার বলবো,,, আমি আর কাউকে ভালোবাসি না,,,, প্লিজ আপনি আর আমাকে বিরক্ত করবেন না,,,

কথাটা বলেই আমি ক্লাসে চলে গেলাম,,,,

তারপর কলেজ শেষ করে বাসায় ফিরতেছি,,,,

রুবেলঃ আচ্ছা,, তোর প্রব্লেম টা কি,,,

আমিঃ আমার আবার কিসের প্রব্লেম 😌

রুবেলঃ তাহলে রিয়া আপুকে বার বার ফিরিয়ে দিচ্ছিস কেনো,,,,

আমিঃ এমনি,,,,

রুবেলঃ মাঝে মাঝে তোকে আমি নিজেও বুজতে পারি না,,

তারপর বিকেলের দিকে আমার ভাংগা চুরা সাইকেল টা চালিয়ে বাজারের দিকে যাচ্ছি,,,, এমন সময় কোথ থেকে যেনো আমার সাইকেলের সামনে রিয়া এসে হাজির,,,,,

রিয়াঃ কি বেপার কোথায় যাচ্ছো,,,

আমিঃ সেটা,, আপনাকে বলবো কেনো,,,

রিয়াঃ ( আমার কাছে এসে,, আমার গালে আদর করতে করতে) কারণ, আমি যে তোমার হবু বউ,,,, 😋

আমিঃ( রিয়াকে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে) দেখেন,,,,আপনাকে এই শেষ বারের মতো বলছি,,, এর পর যদি কখনো আমার কাছে আসার চেষ্টা করেন তো,,, আমি আপনাকে অপমান করতে বাধ্য হবো,,,

রিয়াঃ সাদ,, আমি তোমাকে ভিষণ ভালোবাসি,,, প্লিজ আমাকে মেনে নাও,

আমিঃ ভালোবাসেন!,,, আমার না সত্যিই খুব হাসি পাচ্ছে,,,,যেই মেয়েটা কিছুদিন আগেই আমাকে সহ্য করতে পারতো না,,, সে কিনা,, এই কয়েক দিনের পরিবর্তনে আমাকে ভালোবেসে ফেলছে,,,,,,, How is possible!! দেখেন,, আমি ভালো করেই জানি,, এটা আপনার ভালোবাসা না,,, করুনা,,,, আর আমি করো করুনার পাত্র হতে চাই না,,, প্লিজ আপনি আর আমাকে বিরক্ত করবেন না,,,,

কথাগুলো বলেই রিয়ার কাছ থেকে চলে আসলাম,,,

বাজারে গিয়ে,,, সোজা আড্ডা খানায় চলে গেলাম,,,,

ওমা😱 হারামিগুলা সব কয়টা মুখ বেজার করে চুপচাপ হয়ে বসে আছে,,,,

আমিঃ কি বেপার ! আজকে আকাশ এতো মেঘলা কেন?

রুবেলঃ অই হারামজাদা তুই কি আমাদের ভালো থাকতে দিবি না,,,,

আমিঃ ওমা,, আমি আবার কি করলাম😵

ইকবালঃ আচ্ছা,,, তুই মুলত চাস টা কি?… রিয়া আপু কিছুক্ষণ আগে এখানে আসছিলো,,,,, বলছে তুই যদি আজকে উনাকে ভালো না বাসিস ,,,,, তো আজকেই উনি উল্টো পালটা কিছু করে ফেলবে,,

আমিঃ ওওওও,,, এই কাহিনী,,,, তা এই জন্যই তোমরা এমন ঢেরস হয়ে বসে আছো,,,,। তা মামু রিয়া আপু তোমাদেরকে কতো খাইয়েছে,,,,

ঠাসসসসসস( রুবেল আমাকে থাপ্পড় মারলো)

আমি অনেকটাই অবাক হয়ে,,, গালে হাত দিয়ে কাপা কাপা কন্ঠে রুবেলকে বললামঃ তুই আমাকে থাপ্পড় মারলি!!

রুবেলঃ হ্যাঁ মেরেছি,,,,,, প্রয়োজন হলে আরও মারবো,,,,, তুই আমাদের কি ভাবিস হুম,,,,, হ্যাঁ অমরা মানচি যে আমরা একে অপরকে ঢপ মেরে যা খেতে পারি খেয়ে নেই,,,, কিন্তু তাই বলে কারও ভালোবাসা বিক্রি করে খাওয়া আমাদের পক্ষে সম্ভব!! 😟 আমরা কি এতোটায় খারাপ? (মাথা নিচু করে,, নরম গলায়) রিয়া আপুর বিয়ে ঠিক হয়ে গেছে,,,, আগামী ৩ দিন পরই রিয়া আপুর বিয়ে,,,

রুবেলের মুখে রিয়ার বিয়ের কথাটা শোনার সাথে সাথেই আমার মাথায় যেনো আকাশ ভেঙে পরলো,,,,

আমিঃ এসব কি বলতেছিস!

রুবেলঃ প্লিজ দুস্ত,,,, তুই কিছু একটা কর,,, রিয়া আপু বলছে,,, উনার যদি অন্য কারো সাথে বিয়ে হয়ে যায়,,, তো উনি নিজেকে শেষ করে দিবে,,,,

আমার মাথায় কিছুই আসছে না,,, আমি এখন কি করবো,,,, কোথায় যাবো,,,,

প্যান্টের পকেট থেকে মোবাইল ফোনটা বের করে,,, রিয়াকে কল দিলাম,,,,

পরপর ৪ টা কল দিলাম,,, শুধু রিং হয়ে যাচ্ছে,,,,

রুবেলঃ সাদ,,,, রিয়া হয়তো,,,, ফোনের আশে পাশে নেই,,, তুই আর দেড়ি করিস না,,, রিয়া আপুর বাসায় চলে যা,,,,

আমিঃ হুম,,,,

তারপর ওই স্থানে আর এক মুহুর্তও দেরি না করে,,, রিয়ার বাসার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিলাম,,,,,

প্রায় ১৫ মিনিট পর রিয়াদের বাসার সামনে পৌছোলাম,,,,

কলিং বেল টিপ দিতেই,,, রিয়ার আম্মু এসে দরজা খুলে দিলেন,,,

আমিঃ( আন্টিকে সালাম দিয়ে) আন্টি,, রিয়া আপু বাসায় আছে?

রিয়ার আম্মুঃ জী বাবা,,,, আসো ভিতরে আসো,,,,

আমি রিয়াদের বাসার ভিতরে প্রবেশ করলাম,,

রিয়ার আম্মুঃ রিয়া মনে হয় ছাদে,,,, তুমি বসো,, আমি রিয়াকে ডেকে দিচ্ছি,,,

আমিঃ না না,,, উনাকে ডাকার প্রয়োজন নাই,,, আমিই ছাদে যাচ্ছি,,,

তারপর আমি রিয়াদের বাসার ছাদে যেতেই,,, দেখি রিয়া ছাদের এক কোনে দাড়িয়ে আছে,,,, আমি পিছন দিক থেকে গিয়ে,,, রিয়াকে ডাক দিলামঃ রিয়া,,,

রিয়া আমার দিকে ফিরে তাকাতেই,, আমি চমকে উঠলাম,,,,, দেখি রিয়ার চোখ গুলা ফোলে লাল হয়ে আছে,,,, আর চেহারাটাও কালো হয়ে গেছে,,,

আমিঃ ( রিয়ার কাছে গিয়ে আমার হাত দিয়ে অর চোখে জল মুছে দিতে দিতে)তুমি নিজের,, একি হাল করেছো,,,,

রিয়াঃ (চুপ),,,,,

আমিঃ আমাকে কেনো বলনি,,, যে তোমার বিয়ে ঠিক হয়ে গেছে,,,,

রিয়াঃ তুমি তো সেই সুযোগ টাই আমাকে দাও নি,,,,,, শুধু নিজের কথা গুলো আমাকে শুনিয়েই চলে গেছো,,,, আমি যে কিছু বলতে চাচ্ছিলাম সেটা,, একবারও ভাবো নি৷ ,,,,, ( কেদে দিয়ে)সাদ,,,, আমি তোমাকে ছাড়া থাকতে পারবো না,,, তুমি প্লিজ,, একটা কিছু করো,,,,

আমিঃ কান্না করো না,,,, আমি বাসায় কথা বলে,,,তোমাদের বাসায়,, আমার আব্বু আম্মুকে পাঠাব,,,,

bangla love story golpo

রিয়াঃ যদি,,, উনারা মেনে না নেয়?

আমিঃ ( ওর দিকে কিছুক্ষণ তাকিয়ে থেকে) আগে বলে তো দেখি,,,,,

কথাটা বলেই আমি ছাদ থেকে নিচে নেমে আসতে শুরু করলাম,,,, রিয়া আমার চলে আসার দিকে তাকিয়ে আছে,,,,

আমি আবার রিয়ার দিকে ফিরে তাকিয়ে,,,, ওর কাছে গিয়েই,, ওকে শক্ত করে জরিয়ে ধরলাম,,,,,

রিয়া আমাকে জরিয়ে ধরেই হু হু,, করে কেদে দিলো,,,,

আমারও মনের অজান্তেই,,,, চোখ দিয়ে দু ফুটা জল গড়িয়ে পরলো,,,,

চোখের জল মুছে,,, মুখে হাসি ফুটিয়ে,,,, রিয়াকে বললামঃ তুমি টেনশন করো না,,, সব ঠিক হয়ে যাবে,,,,,,

তারপর রিয়া দের বাসা থেকে সোজা আমাদের বাসায় চলে আসলাম,,,,,

রাতে খাবারের টেবিলে বসে আছি,,,,

আব্বুঃ কি বেপার! তুই খাচ্ছিস না কেনো,,,

আমিঃ আব্বু,,, আমি তোমাদেরকে কিছু বলতে চাই,,,

আব্বুঃ হুম বল,,,

bangla love story golpo

আমিঃ আব্বু,,, আমি যদি কাউকে এখন বিয়ে করতে চায়,,, তোমরা কি তা মেনে নেবে?

আব্বুঃ এসব কি বলছিস! আচ্ছা তোর কি হইছে আমাকে বল তো,,,

আমিঃ আব্বু,,, আমি আর রিয়া দুজন দুজনকে ভালোবাসি,,,, আমি রিয়াকে বিয়ে করতে চাই,,,,

আব্বুঃ What!!😠 এই তোর মাথা ঠিক আছে,,,, এই মেয়ে তোর কতো সিনিয়র,,, আর তা ছাড়া রিয়ার তো বিয়ে ঠিক হয়ে গেছে,,,,

আমিঃ( আব্বুর হাত ধরে) আব্বু প্লিজ,, তুমি চাইলেই তো সব সম্ভব,,, তুমি একবার উনাদের সাথে কথা বলে দেখো না,,, 😰

আব্বুঃ ( এক ঝটকায় আমার হাতটা ছাড়িয়ে) impossible 😠 সেটা কোনো দিনই সম্ভব না,,,

আমিঃ ঠিক আছে,,, তাহলে তুমিও জেনে রাখো,,,, আমি রিয়াকেই বিয়ে করবো,,, আর যদি ওকে বিয়ে করতে না পারি,,,তাহলে,, আমি নিজেকে শেষ করে দিবো,,,,

কথাটা বলেই আমি আমার রুমে চলে আসলাম,,,, রাতের খাবার টাও আর খাওয়া হলো না,,,,

bangla love story golpo

আম্মুঃ আচ্ছা আমরা একবার কথা বলে দেখলে তো আর দুষের কিছু হচ্ছে না,,

আব্বুঃ চুপ,,,, আসব নিয়ে আমি আর কোনো কথা বলতে চাই না,,,, তোমার আস্কারা পেয়ে পেয়ে ছেলে আজ,, কতোটুকু,,,,, 😬

আম্মুঃ আচ্ছা আমরা একবার কথা বলে দেখলে তো আর দুষের কিছু হচ্ছে না,,

আব্বুঃ চুপ,,,, এসব নিয়ে আমি আর কোনো কথা বলতে চাই না,,,, তোমার আস্কারা পেয়ে পেয়ে ছেলে আজ,, কতোটুকু,,,,, 😬

নিজের রুমে এসে,,,, শুয়ে আছি,,, আর ভাবছি,,, এখন আমি কি করবো?

এমন সময় রিয়ার কল,,,,

আমিঃ(রিসিভ করে) খাইছো,,,

রিয়াঃ না,,,,তুমি?

আমিঃ হুম ( মিথ্যা বললাম) তুমিও খেয়ে নাও,,,

রিয়াঃ একটু পরে খাবো,,,, আচ্ছা তুমি আংকেল, আন্টির সাথে কথা বলছো?

আমিঃ ( বিষয়টি এরিয়ে গেলাম) আচ্ছা তুমি আগে খাওয়া দাওয়া করো,,,, আমি আব্বু আম্মুর সাথে এখনি কথা বলবো,,,

কথাটা বলেই ফোনটা কেটে দিলাম,,,,

bangla love story golpo

প্রায় ২০-২৫ মিনিট পরেই রিয়া আবার কল করলো,,,,

রিয়াঃ তোমার আব্বু আম্মু কি বলছে?

আমিঃ ( ওকে এখন কি বলবো,, কিছুই বুঝতে পারছি না😴)

রিয়াঃ কি বেপার কিছু বলছো না যে!

আমিঃ উনারা বলছেন,,, ভেবে দেখবেন,,,

রিয়াঃ অহহ 😕,,,,উনারা যদি রাজি না হয়😟

আমিঃ( ওকে আর কোনো কথা বলার সুযোগ না দিয়ে) আচ্ছা,,, আমার খুব ঘুম পাচ্ছে,,, এখন রাখি,,,

রিয়াঃ তুমি কি আমার কাছে,, কোনো কিছু লুকাচ্ছো,,,

আমিঃ ভালোবাসার মানুষের কাছে কি,, কেউ কখনো কিছু লুকায়?

রিয়াঃ আচ্ছা,, তুমি ঘুমিয়ে পরো

bangla love story golpo

আমিঃ হুম,, তুমিও ঘুমিয়ে পরো,,,

সারাটা রাত ঘুমাতে পারি নি,,,,

খুব ভোরে বিছানা থেকে উঠে,, একা একা বাড়ান্দায় বসে আছি,,,
ঠিক তখনই,, আমার পিছন থেকে কেউ একজন বলে উঠলো,,,,
খুব বেশি কষ্ট হচ্ছে রে বাবা?

আমি পিছনে ফিরে তাকাতেই ঃ আম্মু তুমি!

আম্মিঃ( আমার কাছে এসে,, আমার মাথায় হাত বুলিয়ে দিতে দিতে) দেখ বাবা রিয়াকে ঠকাস না,,, ও খুব ভালো মেয়ে,, আর তোকে ভিষণ ভালোবাসে,,,,, আর রিয়ার আব্বু সেই বিষয় টা কালকে জেনে ফেলছে,,,, তাই রিয়ার আব্বু আজকেই রিয়ার বিয়ে দিয়ে দেবে,,,,, তুই রিয়াকে নিয়ে পালিয়ে যা,,,

আমিঃ আম্মু,, তুমি এসব কি বলতেছো!

bangla love story golpo

আম্মুঃ হ্যা,,, আমি ঠিকি বলতেছি,,,, তোর আব্বু,, তোর আব্বুউ আর রিয়ার আব্বু,, তোদের এই সম্পর্ক কোনো দিনি মেনে নেবে না,,,, দেখ বাবা,, তুই কালকে রাতে কিছু খাস নি বলে,, রিয়াও কিছু খায় নি,,,

আমিঃ কিহ! কিন্তু রিয়া এই কথা কিভাবে জানলো?

আম্মুঃ রিয়া কালকে আমাকে কল করেছিলো 😧,,,আর রিয়া রাতেই তার বেগ টেগ গুছিয়ে রেডি হয়ে গেছে,,,,, ভোরের আলো ফুটার কিছুক্ষণের মধ্যেই ও আমাদের বাসায় চলে আসবে,,,, আমি তোর বেগ টেগ গুছিয়ে রেখেছি,,, তুই আর অমত করিস না,,,, আমি আমার এক বোনের সাথে কথা বলে নিয়েছি,,, উনার বাসায়ই তোরা থাকবি,,,, আর সেখানে গিয়েই তোরা বিয়ে করে নিস,,,

ঠিক তখনি,,, রিয়া এসেঃ সাদ তারাতাড়ি চলো,,, ট্রেন আসার সময় হয়ে গেছে,,,

আমি রিয়ার দিকে তাকাতেই,,, দেখি,, রুবেল, সোহাগ, ইকবাল,,,, সবাই রিয়ার সাথে,,

আমিঃ তোরা!

রুবেলঃ হ্যাঁ,,, তারাতাড়ি চল,,,।
ইকবাল
তুই টিকিট গুলা আনছিস তো?

ইকবালঃ হ্যাঁ,,,, টিকিট সব রেডি,,,

bangla love story golpo

রুবেলঃ সাদ তারাতাড়ি চল,,,, আংকেল টের পেয়ে গেলে,, আবার ঝামেলা হবে,,,

আমি আম্মুকে শক্ত করে একবার জরিয়ে ধরলাম,,,,,

আম্মুঃ ( আমাকে ছেড়ে দিয়ে) তারাতাড়ি যা বাবা,,,,, আর তোর নিজের খেয়াল রাখিস,, আর রিয়াকেও দেখে রাখিস,,

তারপর আম্মুর কাছ থেকে বিদায় নিয়ে,,, বাইকে করে রেল স্টেশন পৌছালাম,,,

মিনিট পাঁচেক পরেই ট্রেন চলে আসলো,,, আমরাও আমাদের গন্তব্যের উদ্দেশে রওনা হলাম,,,,

রুবেলঃ নিজের খেয়াল রাখিস,,, আর ভাবিকেও দেখে রাখিস,,,,

আমিঃ হুম,, তোরাও ভালো থাকিস,,,,

তারপর রিয়া আর আমি এক সাথে অদেরকে হাতের ইসারার মাধ্যমে বিদায় জানালাম,,,,

কেবিনে এসে বসে আছি,,, খেয়াল করলাম রিয়া কান্না করছে,,,

আমিঃ কি বেপার! বাড়ির জন্য মন খারাপ হচ্ছে ?

রিয়াঃ না,,,,,

আমিঃ তাহলে !

রিয়াঃ আমার খুব ভয় হচ্ছে,,,, যদি আব্বু আমাদের লোকেশান জানতে পারে,,,, তাহলে কি হবে?

bangla love story golpo

আমিঃ আরে,,, শশুর মশাই জানতে পারবে না,,,

তারপর প্রায় ৫ ঘন্টা ট্রেন জার্নি করার পর আমরা আমাদের গন্তব্যে পৌঁছলাম,,
ট্রেন থেকে নামা মাত্রই দেখি,,,,,সাদেক( মামাতো ভাই) এখানে এসে হাজির,,

সাদেকঃ এইই লাকেজ গুলা আমাকে দে,,,,

তারপর স্টেশন থেকে একটা অটোরিক্সা নিয়ে খালাম্মাদের বাসায় রওনা হলাম,,,

সাদেকঃ (.আমার কানে কানে এসে) ভাইয়া,,,, ভাবি কিন্তু দেখতে হেব্বি 😋

আমিঃ তুই তো দেখছি ভারি ফাজিল হয়ে গেছিস,,,,

সাদেকঃ তোমার ভাই তো তোমার মতোই হবে 😂
( দেখছেন নি কারবারটা,,,, পুলাপাইন কতো বাপঝুইট্টা 😂)

তারপর সাদেক দের বাড়িতে চলে আসলাম,,

খালাঃ কেমন আছিস তোরা ☺?

আমি+রিয়াঃ জি খালা ভালো আপনি?

খালাঃ হুম,,, ভালো,,,, বাব্বাহ,, আমাদের বৌমা কত্তো সুন্দর,,,,, তা মা,, তুমি দুনিয়ায় এতো ছেলে রাইখা,, এই ফাজিলের প্রেমে কেমনে পড়লা,,, 😂

আমিঃ খালাম্মা বেশি বেশি হয়ে যাচ্ছে কিন্তু

bangla love story golpo

রিয়াঃ ( কিছুটা লজ্জা পেয়ে মুচকি হেসে) আপনাদের ছেলেই তো বাদ্য করেছে😋

তারপর ফ্রেশ হয়ে সন্ধ্যার দিকে,,, বিয়ে করার উদ্দেশ্যে কাজি অফিসে রওনা দিলাম 😋( এই যে পাঠক সাহেবেরা,,,, বিয়ার দাওয়াত দেই নাই বইলা আবার রাগ কইরেন না,,,, দেখতেই তো পাচ্ছেন,, ভাগায়া বিয়া কইরালতাছি😋)

বিয়া টিয়া সাইরা,,, রাতে বাসর ঘরে ডুকলাম,,

আমি রিয়ার কাছে যেতেই রিয়া বলে উঠে,,, এইই আমাকে ছোবা না,,,

আমিঃ এএএএয়ে😵,,,, কেন আমি করছি?

রিয়াঃ তুমি কিছু করো নাই,,, কিন্তু আমাদের ফেমিলি এখনও আমাদের এই সম্পর্ক টা মেনে নেই নাই,,,,,আর যতদিন পর্যন্ত আমাদের দুই পরিবার আমাদের এই সম্পর্ক টা মেনে না নিচ্ছে,,, ততদিন অবধি আমদের মধ্যে কিচ্ছু হবে না,,,

আমিঃ নাআয়া,,,ওওওয়া,, ওওওয়া,, ওওয়া 😭😭😭

রিয়াঃ এইই একদম নেকামি করবা না,,,, চুপচাপ ঘুমাও,,,,

( অই মিয়া অই,, আমার এই দুরদসা দেখে আপনি হাসতেছেন,,, যান গিয়া আপনার ভাবিকে বুঝান,,,, পিলিজ,😭)

প্রায় ২ মাস পর…..

bangla love story golpo

আমি আর সাদেক রাত ৮ দিকে বাসায় ফিরলাম,,,,

বাসায় পা রাখতেই তো আমি অফাক 😱😲

( আরে ভাই রিয়ার আব্বু আম্মু,,, আর আমার আব্বু আম্মু,,, এখানে,,, বসা)

রিয়ার আব্বুঃ ( আমার কাছে এসে আমার কাধের উপরে হাত রেখে) দেখো বাবা,,, যা হবার তা তো হয়েই গেছে,,,, আমরা আর আমাদের সন্তানদের দূরে সরিয়ে রাখতে চাই না,,, তোমরা বাড়ি ফিরে চলো,,,

আমি রিয়ার দিকে তাকাতেই রিয়া মুচকি হাসলো,,,

আব্বুঃ দেখ বাবা,, আমরা আমাদের ভুলটা বুঝতে পারছি,,, তোরা প্লিজ ফিরে চল,,,

আমিঃ এসব কি বলছো আব্বু,,, ভুল তো আমরা করেছি,,,,, তোমরা আমাদেরকে ক্ষমা করে দিও,,,,

তারপর খালাম্মা আর সাদেক এর কাছ থেকে বিদায় নিয়ে রাতেই আমাদের কিশোরগঞ্জের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিয়ে দিলাম,,,,

প্রায়, রাত ২ টার দিকে কিশোরগঞ্জ পৌছালাম,,,

বাসায় এসে কাপড় চেঞ্জ করে,,,, আমার রুমে প্রবেশ করেই দেখি রিয়া দাড়িয়ে কি যেনো করছে,,,, আর আমিও হিন্দি সিনেমার রুমিওদের মতো আমার জুলিয়েট কে পিছন থেকে জড়িয়ে ধরলাম,,,,

রিয়াঃ এইই ছাড়ো,, কি করছো,,

bangla love story golpo

আমিঃ ওমা,,, এখন তো সবাই মেনে নিয়েছে,,, এখনও বারণ করতেছো,,,

রিয়াঃ ওরে আমার পিচ্চি বর গো,,, আর তর সইছে না বুঝি 😋,,,

কথাটা বলেই রিয়া আমার ঠোঁটের উপর,,,,, এহ আর কইতে পারমু না,,,, আমার লজ্জা করে😂😋

৬ বছর পর…..

আমি এক বস্তা রাগ মাথায় লইয়া বাসায় ফিরে,,,,, রিয়ান( আপনাদের ভাতিজা),,,, এই রিয়ান,,,

রিয়াঃ কি বেপার! এতো চেল্লাচিল্লি করতেছো কেন?

আমিঃ তুমি জানো,,, তোমার গুনধর ছেলে আজকে কি করছে! 😠

রিয়াঃ কেন কি করছে,,,?

আমিঃ রুবেইল্লার বড়ো ভায়ের মাইয়ারে প্রপোজ করছে,,,, ওই মাইয়া ওর ৪ বছরের সিনিয়র,,,,

রিয়াঃ হুম ভালোই তো করছে,,,,,, পোলাই তো তার বাপের ঐতিহ্য টা ধরে রাখবে,,,, তাই না

bangla love story golpo

আমিঃ হ্যাঁ,,, তাইতো৷

তারপর পোলার কাছে গিয়ে,,,,

রিয়ান?

রিয়ানঃ হুম,,, আব্বু😘

আমিঃ(ওর পিঠে একটা থাপ্পড় দিয়ে) চালিয়ে যা বাপ,,,, তোর আব্বু যেহেতু সফল হইছে,,,, তুই ও হবি,,,

কি ভাই ঠিক কইছি না 😂

THE END

আরো ভালোবাসার গল্প পড়ুন

You may also like...

1 Response

  1. May 16, 2020

    […] রইলো। আমি হেঁটে যেতে যেতে শ্রাবণীকে বললাম,— পিহুর কি হয়েছে?শ্রাবণী বললো,– এক […]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *